নড়াইলের সুব্রত মিত্রের পরিচালনায় সাড়াজাগানো নাটক কুশলে থেকো

2

নড়াইল অফিস : নড়াইলের ছেলে সুব্রত মিত্রের পরিচালনায় নাটক “কুশলে থেকো”শুটিং শেষ হয়েছে কুশলে থেকো নাটকের। জহির করিমের রচনা ও চিত্রনাট্যে নাটকটি যৌথ ভাবে পরিচালনা করেছেন অমিতাভ আহমেদ রানা এবং সুব্রত মিত্র। অভিনয় করেছেন ইরফান সাজ্জাদ, তাসনিয়া, ফারিন, শৈলী, আজম খান, রেশমী ও বাপ্পা শান্তনু। গল্পে দেখা যাবে, সুজনা ডি’কস্টা একটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাষ্টার্স শেষ করেছে। মেধাবী ছাত্রী, স্বভাবে শান্ত শিষ্ট। একজন খ্রিষ্টান মহিলা মেরী ডি গোমেজের বাসায় সাবলেট থাকে সুজানা দি কস্টা। সুজানার তেমন কোন বন্ধু-বান্ধব নেই। সব সময় লং ড্রেস পড়ে। চোখে চশমা, চুলটা টেনে আঁচড়ায়। বেশীর ভাগ সময়ই হাতে ব্যাগ বা ডায়রী বা বই থাকে। অন্যদিকে চঞ্চল স্বভাবের ছেলে রিয়াজ হোসেইন। সেও একই বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করে বেরিয়েছে। রিয়াজ সুজানাকে চিনলেও, সুজানা রিয়াজকে চেনে না। একদিন হঠাৎ করে তাদের রাস্তায় দেখা হয়। রিয়াজ সুজানার সঙ্গে কথা বলে সুজানার সঙ্গে একটা ভালো বন্ধুত্ব গড়ে তোলার চেষ্টা করে। রিয়াজের সঙ্গে সুজানার বন্ধুত্বের সম্পর্কে সুজানা বেশ সাচ্ছন্দ্যবোধ করে। কিন্তু সুজানার মম কোনভাবেই সুজানার সঙ্গে রিয়াজের এই মিলামেশার ব্যাপারে প্রশ্রয় দিতে একদম নারাজ। সুজানার মম সব সময় চান, একজন যোগ্য খ্রিস্টান পাত্রের সঙ্গে সুজানার বিয়ে হোক। এমতাবস্থায় , সুজানার মম-ড্যাড সুইজারল্যান্ড প্রবাসী যোগ্য পাত্র পিটারের সঙ্গেই সুজানার বিয়ের ব্যাপারে মৌখিকভাবে কথাবার্তা পাকা করে ফেলেছেন। এদিকে সুজানাও বাবা মায়ের পছন্দের পাত্রের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে অরাজি নয় এবং সেকারণেই সে রিয়াজের ভালোবাসাকে প্রশ্রয় দিচ্ছে না। ভালোবাসার ক্ষেত্রে খুবই জেদি। সুজানার অন্য কারও সঙ্গে বিয়ে হবে এটা রিয়াজ কোনভাবে মেনে নিতে পারেনি। তাই প্রতিনিয়ত সে সুজানার কাছ থেকে তার ভালোবাসার স্বীকৃতি আদায় করার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করতে থাকে।