খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় সরকারের গড়িমসি : মির্জা ফখরুল

11
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

সোনালী দিন ডেস্ক : বিএনপির মহসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সম্পূর্ণ সুস্থ হওয়ার আগে খালেদা জিয়াকে আবারো কেরানীগঞ্জে পাঠানো মানে তাকে পরিকল্পিতভাবে ক্ষতি করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তার চিকিৎসার বিষয়ে সরকারের গড়িমসি রয়েছে। তাকে কাঙ্ক্ষিত মানের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে না।

শনিবার (২০ এপ্রিল) বিকেলে কুমিল্লার সদর দক্ষিণে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট নেতা মো. মনিরুল হক চৌধুরীর বাড়িতে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির দাবির বিষয়টি মিডিয়ার সৃষ্টি। বিএনপি কখনো প্যারোলে মুক্তির দাবি করেনি। গণতান্ত্রিক আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবো।

তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার স্বৈরাচার সরকারের চেয়েও
ভয়ঙ্কর। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি পরাজিত হয়নি। আমরা নির্বাচনে গিয়েছি বলে আওয়ামী লীগ যে একটি জনবিচ্ছিন্ন রাজনৈতিক দল, তা জনগণের কাছে প্রমাণিত হয়েছে। এ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে প্রমাণিত হয়েছে আওয়ামী লীগ একটি দেউলিয়া দল। আওয়ামী লীগ মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে জোর করে বাকশাল কায়েমের পথ তৈরি করেছে। গণতন্ত্রকে শেষ করে দিয়েছে। আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে শেষ করে দিয়েছে।

এর আগে দুপুরে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার মোকাম এলাকায় এক শ্রমিক নেতার কবর জিয়ারত করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল। এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সহসভাপতি শওকত মাহমুদ।

এ সময় ফখরুল ইসলাম কাবিলা এলাকায় একটি পথসভায় বক্তব্য দেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও সাবেক সংসদ সদস্য মনিরুল হক চৌধুরীর মেয়ে সায়মা ফেরদৌস চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা জেলা বিএনপির সাংগাঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়া ও আবদুল আউয়াল খান, গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সেলিম ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোস্তফা খান সফরী ও সৈয়দ জাহাঙ্গীর প্রমুখ।

পরে বিএনপির মহাসচিব কুমিল্লার সদর দক্ষিণ, লালমাই ও নাঙ্গলকোট উপজেলা নিয়ে গঠিত কুমিল্লা-১০ নির্বাচনী এলাকায় নির্বাচনকালীন সময়ে ক্ষতিগ্রস্ত মোট ৯৫ জন বিএনপি নেতাকর্মীকে ১৫ হাজার টাকা করে ক্ষতিপূরণের টাকা তুলে দেন।